ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ করার নিয়ম

ইংরেজি সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত একটি ভাষা। এটি বিশ্বের প্রায় সব জায়গাতেই কাজে লাগে। বিভিন্ন ভাষার সাথে তুলনা করলে ইংরেজি ভাষাকে সহজ বলেই মনে হবে। যেমন আমাদের বাংলা ভাষার জন্যে আমরা প্রায় ৫০ টি বর্ণ ও কতগুলা কার চিহ্ন ব্যবহার করি যেখানে ইংরেজির জন্যে শুধু ২৬ টি বর্ণমালাই যথেষ্ট। ইংরেজি ভাষা আমাদের দেশে ২য় ভাষা হিসেবে স্বীকৃত। বাংলাদেশে উচ্চ শিক্ষা, উচ্চ অফিস আদালতের প্রায় সবখানেই ইংরেজি ব্যবহার হয়। সেজন্যে ইংরেজি ভাষা জানাটা গুরুত্বপূর্ণ। 

অনেক সময় ইংরেজি ভাষাকে বাংলায় অনুবাদ করার প্রয়োজন হয়। এ কাজ যারা করেন তাদের দুই ভাষাতেই দক্ষ হতে হয়।  এছাড়া একাডেমিক পড়াশুনায় বাংলা ২য় পত্রে বঙ্গানুবাদ করতে হয়। বিসিএস পরীক্ষাসহ বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষায় এই ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ করার প্রশ্ন থাকে। 

ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ করার পদ্ধতি দুইটি। ১. আক্ষরিক অনুবাদ ২. ভাবানুবাদ 

আক্ষরিক অনুবাদ

বাক্যের ইংরেজি শব্দগুলোর পরিবর্তে বাংলা শব্দ বসিয়ে অনুবাদ করলে তা হবে আক্ষরিক অনুবাদ। আক্ষরিক অনুবাদ শ্রুতিকটু হয়। অনেক সময় আমরা গুগলে কোনো কিছু ট্রান্সলেট করতে দিলে তা আক্ষরিক অনুবাদ হয়ে এমন বাংলা অর্থ দেয় যা দেখে আমরা হেসে ফেলি। এজন্যে আক্ষরিক অনুবাদে ভাষার মাধুর্য্য থাকে না। Please give me a cup of tea এই ইংরেজি বাক্যটিকে বাংলায় আক্ষরিক অনুবাদ করলে এমন হয় যে, দয়া করে আমাকে একটি চা এর পেয়ালা দিন। কিন্তু এটি আসলে গ্রহনযোগ্য কোনো অনুবাদ নয়। বাক্যটির বাংলা অনুবাদ হবে, হবে আমাকে এক কাপ চা দিন। এমন শ্রুতিকটু ও আড়ষ্টতাঁর জন্যে আক্ষরিক অনুবাদ পরিহার করা হয়।

ভাবানুবাদ

মূল অর্থের পরিবর্তন না করে অন্য ভাষাকে যখন নিজ ভাষার নিয়মে  স্বাধীনভাবে যে অনুবাদ করা হয় তখন তাকে ভাবানুবাদ বলা হয়। ভাবানুবাদ মূলানুগ না হলেও এটি পড়তে ও শুনতে ভালো লাগে। যেখানে আক্ষরিক অনুবাদে ভুল উপলব্ধি কিংবা বুঝতে সমস্যা হয় সেখানে ভাবানুবাদে সহজেই বুঝা যায়। এজন্যে বাংলা সাহিত্যের অনুবাদ হয় ভাবানুবাদ যাতে গল্পের রস উপলব্ধি করা যায়। 

তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে চলে যাই ইংরেজি থেকে বাংলা অনুবাদ করার নিয়ম। 

১. বঙ্গানুবাদ একটি শিল্পকর্মের মতো। তাই এটিকে সঠিক নিয়ম কানুন মেনে করতে হবে। আক্ষরিক অর্থে বঙ্গানুবাদ করা সঠিক কোনো পদ্ধতি হতে পারে না। তাই ভাবানুবাদ-ই হলো প্রকৃত বঙ্গানুবাদ। বাংলা ও ইংরেজি দুটি সম্পূর্ণ আলাদা ভাষা । দুই ভাষার রীতি নীতি, বৈশিষ্ট্য সম্পূর্ণ আলাদা। আক্ষরিক অর্থে অনুবাদ করতে গেলে ইংরেজিতে এমন সব শব্দ পাওয়া যাবে যেগুলোর জন্যে বাংলাতে কোনো প্রতিশব্দ পাওয়া যাবে না । যেমন ধরুন আপনি একটি ইংরেজি নাটক বা উপন্যাস বাংলায় অনুবাদ করতে গিয়ে দেখলেন নাটক বা উপন্যাসে uncle শব্দটি আছে। এখন এই uncle শব্দটি দ্বারা আপনি কাকে বুঝাবেন? মামা? চাচা? ফুফা? প্রকৃতপক্ষে এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর পেতে হলে আপনাকে নাটক বা উপন্যাসটি সম্পূর্ণ  পড়ে শেষ করে ভাবানুবাদ করতে হবে। যেকোনো ইংরেজি লেখাকে বাংলায় রুপান্তর করতে হলে আপনাকে অবশ্যই প্রথমে সম্পূর্ণ লেখা ভালোভাবে বুঝে বুঝে পড়তে হবে। নির্ধারিত অংশ কয়েকবার পড়লে লেখার মূলভাব বুঝতে পারবেন আর অনুবাদ করার পূর্বে মূলভাব জানা অত্যাবশ্যক। শব্দ ধরে ধরে লেখাকে অনুবাদ করতে যাবেন না । বরং সম্পূর্ণ বাক্যকে রুপান্তর করুন।

২.  বাংলা অনুবাদ করার সময় Tense অপরিবর্তিত রাখতে হবে। সেজন্যে প্রথমে আপনাকে নির্ধারিত অংশ পড়ে টেন্স বা কাল জেনে নিতে হবে। সেই সাথে বাক্যের বাচ্যও অপরিবর্তিত রাখতে পারেন। তবে বাচ্য অপরিবর্তিত রাখা অত্যাবশ্যক নয়। ইংরেজিতে passive voice এ শুনতে ভালো লাগলেও বাংলায় রুপান্তর করলে তা শুনতে ও বলতে ভালো লাগবে না। তাই অনুবাদের প্রাঞ্জল্য বাড়ানোর জন্যে বাচ্য ও বাক্যের গঠন পরিবর্তন করতে পারেন। জটিল বাক্য জটিল করেই অনুবাদ করতে হবে এমন কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। 

৩. ইংরেজি গল্প, উপন্যাস, নাটক বঙ্গানুবাদ করার সময় সেগুলোকে সাহিত্যিক ভাষা সমৃদ্ধ রাখুন। এতে অনুবাদের মান বাড়বে। তবে বিভিন্ন নিউজ, ইংরেজি প্রবন্ধ, রিসার্চ পেপারের বঙ্গানুবাদ সুন্দর চলিত ভাষায় লিখুন। এখানে সাধু ভাষা সম্পূর্ণরুপে পরিহার করুন। গুরুচন্ডালী করা যাবে না। গুরুচন্ডালী দোষ কি? যখন কোণো লেখায় সাধু ও চলিত ভাষার ত্রুটিপূর্ণ মিশ্রন ঘটে তখন তাকে গুরুচন্ডালী দোষ বলে। 

৪.  প্রশ্নবোধক বাক্যের পদের ক্রম ইংরেজি ও বাংলায় ভিন্ন হয়। যেমনঃ Are you okay? 

এখানে প্রথমে ক্রিয়া+ কর্তা+ অতিরিক্ত অংশ। আর এটি বাংলায়, তুমি কি ঠিক আছো? এখানে প্রথমে কর্তা+ অব্যয়(প্রশ্নবোধক)+ অতিরিক্ত অংশ। 

৫.  প্রত্যেক ভাষায় কিছু প্রবাদ প্রবচন থাকে যেগুলোর শাব্দিক অর্থ হয় না। ভাবার্থ থাকে। তেমনি ইংরেজি ভাষাতেও অনেক প্রবাদ রয়েছে যেগুলোকে বাংলায় রুপান্তরের সময় বাংলা প্রবাদ ব্যবহার করা যায়। যেমন, The more you read, the more you learn. যতই পড়িবে, ততই শিখিবে। Where there is a will, there is a way. ইচ্ছে থাকলে উপায় হয়।

৬.  ইংরেজি বাক্যে Article, it, may, there ইংরেজি ভাষার বিশেষ নিয়মে থাকলেও বাংলা ভাষায় তা অনেক সময়ই পরিহার করে অনুবাদ করা হয়।  যেমনঃ It rains havily এর সঠিক অনুবাদ হলো, প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে, এখানে it এর অর্থ বাংলায় ব্যবহৃত হয়নি। আবার, There are two schools in our village. আমাদের গ্রামে ২ টি বিদ্যালয় আছে। May Allah bless you – আল্লাহ তোমার মঙ্গল করুক। আবার Article এর ক্ষেত্রেও এমন দেখা যায়, He is an honest man – তিনি/সে সৎ। The sun rises in the east – সূর্য পূর্ব দিকে উঠে। 

৭. কোনো ব্যক্তি বা স্থানের নাম থাকলে তা অনুবাদেও একই থাকবে কারন এগুলোর কোনো রুপান্তর হয় না। যেমনঃ Newton-নিউটন, Elizabeth- এলিজাবেথ, London-লন্ডন।

৮. বিভিন্ন আন্তর্জাতিক একক যেমনঃ metre-মিটার, pound-পাউন্ড, KG-কেজি ইত্যাদি অনুবাদে অপরিবর্তিত থাকবে।

৯. পরিভাষা থাকলে তা সেসব শব্দের বাংলা প্রচলিত পরিভাষা ব্যবহার করা উচিৎ। যেমনঃ Biology-জীববিজ্ঞান, Aid-সাহায্য। পারিভাষিক শব্দের বাংলা প্রচলিত শব্দ দুর্বোধ্য বা বুঝতে কঠিন হলে তা প্রতিবর্ণীকরন করতে হবে। যেমনঃ chair এর বাংলা প্রচলিত শব্দ কেদারা, আবার computer এর বাংলা প্রচলিত শব্দ গননাকারী যন্ত্র কিন্তু এসব শব্দ বাংলায় খুব একটা লক্ষ্য করা যায় না। তাই উক্ত শব্দগুলো বাংলায় প্রতিবর্ণীকরন করতে হবে অর্থাৎ চেয়ার, কম্পিউটার। 

এক সময় বাংলা টু ইংরেজি(অনুবাদ করুন bengali to english), ইংরেজি টু বাংলা(অনুবাদ করুন english to bangla) অনুবাদ করতে ডিকশনারি ঘাটাঘাটির প্রয়োজন হতো। তা অনেক সময় সাপেক্ষ ছিলো। কিন্তু এখন ইন্টারনেটে গুগলের সাহায্য নিয়ে অল্প সময়ে সঠিক অনুবাদ করা যায়। অনুবাদ ও বাংলা ব্যকরন শেখার জন্যে ড.মোহম্মদ আমিন স্যারের প্রমিত বাংলা ব্যকরন ও নির্মিতি, মোহম্মদ মোস্তফা সাওন স্যারের প্রসংগ ব্যবহারিক বাংলা, উপল তালুকদারের ব্যবহারিক প্রমিত বাংলা বইগুলো পড়ে দেখতে পারেন। 

 

4728dbbc5c6763f37c33f5ebb100ad9e?s=150&d=mm&r=g

Tanvir Brain

 themarketerbd@gmail.com  https://www.monsterbangla.com

We will be happy to hear your oughts

Leave a reply

Monster Bangla
Logo
Compare items
  • Total (0)
Compare
Shopping cart